আল্পস পর্বতমালা: ইউরোপের সবচেয়ে বড় পর্বতমালা সম্পর্কে জেনে নিন খুঁটিনাটি

162
0

ইউরোপ মহাদেশে রয়েছে অনেক পর্বতমালা। তবে ইউরোপের সবচেয়ে বড় পর্বতমালার নাম আমরা কমবেশি সবাই শুনেছি। ধারণা করতে পারছেন আমি কোন পর্বতমালার কথা বলছি? হ্যাঁ, আপনি ঠিকই ধরতে পেরেছেন। আমি আল্পস পর্বতমালার কথাই বলছি। যা ইউরোপের ছবির মতো সুন্দর একটি দেশ সুইজারল্যান্ডে অবস্থিত। 

আল্পস ইউরোপের সবচেয়ে বড় পর্বতমালা। যা শুধু আকৃতিতেই বিশাল নয়; বরং এর সৌন্দর্যের কোন তুলনা হয় না। দেরি না করে চলুন আজকে তাহলে জেনে নেয়া আল্পস পর্বতমালা সম্পর্কে বিস্তারিত। 

ভৌগলিক অবস্থান 

আল্পস মূলত একটি অবিচ্ছিন্ন পর্বত শৃঙ্খলের একটি ছোট অংশ; যা উত্তর আফ্রিকার অ্যাটলাস পর্বতমালা থেকে দক্ষিণ ইউরোপ এবং এশিয়া জুড়ে হিমালয় পর্যন্ত বিস্তৃত। আল্পস পর্বতমালা পূর্ব-উত্তরপূর্বে ভিয়েনার আগে; ফ্রান্সের নিস-এর কাছে উপ-ক্রান্তীয় ভূমধ্যসাগরীয় উপকূল থেকে উত্তরে জেনেভা হ্রদ পর্যন্ত বিস্তৃত। 

আল্পসের ভৌগলিক অবস্থা; Image Source: Encyclopedia Britannica

সেখানে এটি দানিয়ুব নদীকে স্পর্শ করে এর সংলগ্ন সমভূমির সাথে মিশে আছে। ফ্রান্স, ইতালি, সুইজারল্যান্ড, জার্মানি, অস্ট্রিয়া, স্লোভেনিয়া, ক্রোয়েশিয়া, বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা, মন্টিনিগ্রো, সার্বিয়া এবং আলবেনিয়ার কিছু অংশ নিজের করে নিয়েছে এই পর্বতমালা। 

তবে শুধুমাত্র সুইজারল্যান্ড এবং অস্ট্রিয়াকেই সত্যিকারের আল্পাইন দেশ হিসেবে বিবেচনা করা যেতে পারে। এই পর্বতমালা প্রায় ৭৫০ মাইল দীর্ঘ এবং ১২৫ মাইলেরও বেশি প্রশস্ত। গার্মিশ-পার্টেনকিরচেন, জার্মানি এবং ভেরোনা, ইতালির মধ্যে, আল্পস পর্বত ৮০ হাজার বর্গ মাইল (২০৭,০০০ বর্গ কিলোমিটার) জুড়ে রয়েছে।

আল্পসের আবহাওয়া

আল্পস সম্পর্কে আশ্চর্যজনক একটি তথ্য হচ্ছে পুরো পর্বতমালা যতদূর জায়গা জুড়ে বিস্তৃত সব জায়গায় একই সময়ে একই রকম আবহাওয়া বিরাজমান নয়। বরং আবহাওয়ায় বেশ বৈচিত্র্যতা ও ভিন্নতা পরিলক্ষিত হয়।

রাতারাতি আবহাওয়ার পরিবর্তন এবং স্থানভেদে এই ভিন্নতার প্রধান কারণ হচ্ছে আল্পসের লোকেশন। মজার বিষয় হচ্ছে, আল্পসের এক পর্বতরাশির আবহাওয়ার সাথে অন্য পর্বতরাশির আবহাওয়ার তো মিলই নেই। এমনকি একই পর্বত রেঞ্জের মধ্যেও আবহাওয়ার এই ভিন্নতাও সরাসরিই দেখতে পাওয়া যায়। 

আল্পস চারটি প্রধান জলবায়ু প্রভাব দ্বারা প্রভাবিত হয়: পশ্চিম দিক থেকে আটলান্টিকের অপেক্ষাকৃত মৃদু, আর্দ্র বায়ু প্রবাহিত হয়; শীতল বা ঠান্ডা মেরু বায়ু উত্তর ইউরোপ থেকে নেমে আসে; মহাদেশীয় বায়ু ভর, শীতকালে ঠান্ডা এবং শুষ্ক এবং গ্রীষ্মে গরম, পূর্বে প্রাধান্য পায়; এবং, দক্ষিণে, উষ্ণ ভূমধ্যসাগরীয় বায়ু উত্তর দিকে প্রবাহিত হয়। প্রতিদিনের আবহাওয়া ঘূর্ণিঝড়ের অবস্থান এবং উত্তরণ ও পাহাড়ের উপর দিয়ে যাওয়ার সময় বাতাসের দিক দ্বারা প্রভাবিত হয়। 

বরফ জমা আল্পস; Image Source: Unsplash.com

উপত্যকার নীচের অংশগুলিকে খুব সহজেই আলাদা করা যায়। কারন আশেপাশের অঞ্চলের তুলনায় এই অংশ উষ্ণ এবং শুষ্ক। শীতকালে ৫ হাজার ফুটের উপরে ১০ থেকে ৩৩ ফুট গভীরতায় প্রায় সময় বৃষ্টিপাত হয় এবং তা তুষার আকারে বর্ষিত হয়। 

তুষারের আচ্ছাদন আনুমানিক নভেম্বরের মাঝামাঝি থেকে মে মাসের শেষ পর্যন্ত ৬৬০০ ফুট স্তরে জমে যায়। এতে করে উচ্চ পর্বত গিরিপথগুলি অবরুদ্ধ হয়ে যায়। তবুও তুলনামূলকভাবে তুষারহীন শীতকালের দেখা মেলে এখানে। উপত্যকার সারফেসে জানুয়ারী মাসের গড় তাপমাত্রা মাইনাস ৫/৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে ভূমধ্যসাগরের সীমান্তবর্তী পাহাড়ে ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত থাকে। 

তাপমাত্রার পরিবর্তন ঘন ঘন হয়, বিশেষ করে শরৎ এবং শীতকালে। উপত্যকাগুলি প্রায়শই কুয়াশাছন্ন থাকে। সেই সময়ে ৩ হাজার ফুটেরও বেশি উপরে স্তরগুলি নিচু উপত্যকার নীচের স্তরগুলির চেয়ে উষ্ণ এবং রৌদ্রোজ্জ্বল হয়।   

আল্পসের প্রাণীবৈচিত্র্য 

আবহাওয়ার বৈচিত্রতার প্রভাব দেখা যায় আল্পসের প্রাণীবৈচিত্র্যতেও। এখানে বিভিন্ন স্থানে আবহাওয়া অনুযায়ী গাছপালাতে আছে ভিন্নতা। মাত্র ১ হাজার মিটারের নিচে আপনি জমকালো আলপাইন তৃণভূমি জুড়ে গ্রীষ্মে গরু এবং ভেড়া চরে বেড়াতে দেখবেন। বিভিন্ন ধরনের পর্ণমোচী গাছ, যেমন: লিন্ডেন, ওক, এলম এবং বার্চের দেখা পাবেন উপত্যকার মেঝে এবং নীচের ঢালে। এই গাছগুলো সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২৫০০ মিটার উঁচুতে চরম আবহাওয়া সহ্য করতে পারে। 

এছাড়াও, কিছু পাইনের জাত আছে যা সেখানের জলবায়ুর সাথে খুব ভালভাবে খাপ খাইয়ে নিয়েছে। যেমন – অ্যারোলা পাইন। এটি ৩৫০-৪০০ বছর বেঁচে থাকতে পারে। কিছু কিছু পাইনের ৮০০ বছর বেঁচে থাকার রেকর্ডও রয়েছে। পাইনের এই নির্দিষ্ট বৈচিত্র্যটি সাধারণত চালেট নির্মাণের জন্য ব্যবহৃত হয়। আল্পসের যত বেশি উপরের দিকে যাবেন তত বেশি তুষারের ঘনত্ব বৃদ্ধি পাবে। মেরিটাইম আল্পস এবং দক্ষিণ ইতালীয় আল্পসের দক্ষিণে ভূমধ্যসাগরীয় গাছপালাও রয়েছে বটে। 

আল্পসের প্রাণী চারমাইস; Image Source: alpsinluxury.com

বেশ কয়েকটি প্রজাতির প্রাণী এরকম প্রতিকুল আলপাইন আবহাওয়ার সাথে খাপ খাইয়ে নিয়েছে; যেমন ইবেক্স, বন্য ছাগল এবং চারমাইস,মারমটস, পর্বত খরগোশ, টারমিগান এবং গ্রুস। স্থানীয় প্রাণীকুল রক্ষার জন্য পর্বতমালার মধ্যে বেশ কয়েকটি জাতীয় উদ্যানও রয়েছে।

আল্পস পর্বত অঞ্চলসমূহ

আল্পস পর্বত একটি মাত্র পর্বত নয়; বরং কয়েকটি অঞ্চল নিয়ে এবং কয়েকটি পর্বত নিয়ে এক বিশাল পর্বতমালা জুড়ে গঠিত। অঞ্চলগুলো হলো – 

সুইস আল্পস

সুইস আল্পস, সুইজারল্যান্ডের সবচেয়ে তাৎপর্যপূর্ণ অঞ্চলগুলোর মধ্যে একটি, যা সুইজারল্যান্ডকে অন্যান্য  আল্পাইন দেশগুলির থেকে আলাদা এবং গুরুত্বপূর্ণ করে তুলেছে। কারণ, এই দেশের ৬৫ ভাগ জুড়েই রয়েছে আল্পস। 

মন্টে রোসা যা সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৪৬৩৪ মিটার উপরে; সুইস আল্পসের সর্বোচ্চ বিন্দু। সুইস আল্পসে আছে আল্পসের বৃহত্তম হিমবাহ, আলেৎস হিমবাহসহ প্রায় ১৮০০টি হিমবাহ রয়েছে এখানে।  

অস্ট্রিয়ান আল্পস

অস্ট্রিয়ান আল্পস; Image Source: 10adventures.com

অস্ট্রিয়ান আল্পস যা সেন্ট্রাল ইস্টার্ন আল্পস হিসেবে পরিচিত, প্রধানত অস্ট্রিয়াতে অবস্থিত। কিন্তু ইতালির লেক কোমো এবং সুইজারল্যান্ড ও স্লোভেনিয়ার সংলগ্ন অঞ্চল পর্যন্তও এটি বিস্তৃত বটে। মাউন্ট গ্রোসগ্লোকার হলো অস্ট্রিয়ান আল্পসের সর্বোচ্চ বিন্দু; যা ৩৯৭৯ মিটার উপরে অবস্থিত। 

ফ্রেঞ্চ আল্পস

অপার প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের আধার হলো ফ্রেঞ্চ আল্পস। অঞ্চলটিতে আছে খুবই মনোরম আলপাইন হ্রদ; যার জন্য এই আল্পস অঞ্চলটি পর্যটকদের মনে জায়গা করে নিয়ে খুব সহজেই। এছাড়াও, সবচেয়ে বড় লেকগুলো হলো লেক জেনেভা, ল্যাক ডি অ্যানেসি এবং ল্যাক ডি বোর্গেট। 

এই অঞ্চলে চারমইক্স, সেইন্ট জেরভাইস, আলবার্ট ভিলে, গ্রিনোবেল এবং অ্যানেসির মত বিখ্যাত রিসোর্ট শহর রয়েছে। এই অঞ্চলটি মন্টি ব্ল্যাঙ্কেরও হোস্ট, আল্পসের সর্বোচ্চ পর্বত, যার উচ্চতা ৪৮০৮ মিটার। 

ইতালিয়ান আল্পস

ইতালিয়ান আল্পস; Image Source: Unsplash.com

মাউন্ট গ্রান প্যারাডিসো এর সর্বোচ্চ বিন্দু, উচ্চতায় এটি ৪০৬১ মিটার। এই অঞ্চলটি ইতালির প্রাচীনতম জাতীয় উদ্যান গ্রান প্যারাডিসো ন্যাশনাল পার্ক হিসেবেও পরিচিত। 

ব্যাভারিয়ান আল্পস

এই আলপাইন অঞ্চলটি জার্মানির মোট ভূপৃষ্ঠের ১০% এরও কম অংশ জুড়ে রয়েছে। তবে এটি অবশ্যই এই দেশের সবচেয়ে সুন্দর প্রাকৃতিক অঞ্চলগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য। 

জুলিয়ান আল্পস

জুলিয়ান আল্পসের সর্বোচ্চ বিন্দু হল মাউন্ট ট্রিগ্লাভ ২৮৬৪ মিটার। এই আল্পাইন অঞ্চলের বৃহত্তম অংশ ট্রিগ্লাভ জাতীয় উদ্যানে অবস্থিত। 

জেনে নিন আল্পস সম্পর্কে কিছু অজানা তথ্য

১/ অ্যামাইথিস্ট এবং কোয়ারটজ ক্রিস্টালে ভরপুর আল্পস অঞ্চল। সেখানে একটি মিউজিয়ামও আছে যেখানে অনেক ক্রিস্টাল পাথরের দেখা মিলবে। 

২/  দক্ষিণের আল্পস গঠিত হয়েছে ইতালিয়ান ডলোমাইটস দিয়ে যা আসলে চুনাপাথর দিয়ে গঠিত। 

৩/  মাউন্ট ব্লাঙ্ক সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ হলেও, সুইসদের কাছে ম্যাটারহর্ন হলো সবচেয়ে উঁচু পর্বতশৃঙ্গ। যেটায় হাইকিং করা মোটেও নিরাপদ না। 

৪/ গবেষণায় দেখা গিয়েছে আল্পস হলো পশুপাখির অভয়ারণ্য। এখানে সাড়ে ৪ হাজারের মত গাছ, ২০০ প্রজাতির পাখি, ২১ জাতের অ্যাম্ফিবিয়ান, ১৫ রেপটাইল এবং ৮০টি ম্যামালের প্রজাতি আছে। 

৫/ আল্পস সম্পর্কে আরেকটি চমকপ্রদ তথ্য হচ্ছে এখানে পৃথিবীর সবচেয়ে লম্বা এবং গভীর গথারবেইস টানেল অবস্থিত। 

এছাড়াও আল্পসের রয়েছে কিছু উল্লেখযোগ্য পর্বত যেমনঃ মন্ট ব্ল্যাঙ্ক, ম্যাটারহর্ণ, মন্টে রোসা, জাংফ্রাউ, উইসসরন। যা বিশ্বব্যাপী পর্যটকদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু। 

Feature Photo: Photo by Simon Fitall on Unsplash
তথ্যসূত্র:

  1. Alps.
  2. alps-mountain-range.
  3. alps.
  4. Articles-alps.
  5. interesting-facts-about-the-alps.
  6. alps-facts.
  7. fun-facts-the-alps.
  8. Alps.

মন্তব্য করুন

অনুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার মন্তব্য লিখুন!
নুগ্রহ করিয়া এখানে আপনার নাম লিখুন!